Press Release
BASIS in Media
Current News
Press Kit
Upcoming Events
05 Feb 2018
"শিশুরাই হবে প্রোগ্রামার: ২য় পর্ব"
03 Feb 2018
বেসিস পিকনিক ২০১৮ অনুষ্ঠিত
03 Feb 2018
বেসিস-বাংলাদেশ ব্যাংক বৈঠক অনুষ্ঠিত
27 Jan 2018
বেসিসে 'ট্যাক্স, ভ্যাট' ইস্যুতে মতবিনিময় সভা
22 Jan 2018
ফেব্রুয়ারিতে শুরু হচ্ছে বেসিস সফটএক্সপো ২০১৮
More News
Home » Current News » News Detail
বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাত বিনিয়োগবান্ধব ও সম্ভাবনাময়
19 Oct 2017

বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশ দ্রুতভাবে তথ্যপ্রযুক্তিতে এগিয়ে যাচ্ছে। সরকারি-বেসরকারি প্রচেষ্টার ফলে বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাত বিশ্বের কাছে সম্ভাবনাময় হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। অবকাঠামো, জনবল ও পলিসির দিক থেকেও এই খাত যথেষ্ট বিনিয়োগবান্ধব। বিভিন্ন উদ্যোগ বাস্তবায়নের প্রতিবন্ধকতাগুলো দূর করতে পারলে তথ্যপ্রযুক্তির অন্যতম পরবর্তী গন্তব্যস্থল হবে বাংলাদেশ। তাই এখনই দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকারীদের বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতে বিনিয়োগের সময়।

বৃহস্পতিবার (১৯ অক্টোবর ২০১৭) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত আইসিটি এক্সপো ১৭ এর এক সেমিনারে সংশ্লিষ্টরা এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানস্থলের উইন্ডি টাউন হলে ‘বাংলাদেশ হাইটেক পার্কে বিনিয়োগকারী ও স্টার্টআপদের সম্ভাবনা’ শীর্ষক এই সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন কাস্টমস অ্যান্ড ভ্যাট অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের সদস্য জনাব মো. রেজাউল হাসান। বেসিস সভাপতি জনাব মোস্তাফা জব্বারের সঞ্চালনায় সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সাপোর্ট টু ডেভেলপমেন্ট অব কালিয়াকৈর হাইটেক পার্ক এর প্রকল্প পরিচালক জনাব শফিকুল ইসলাম। আলোচক হিসেবে ছিলেন মিলেনিয়াম ইনফরমেশন সল্যুউশন লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব মাহমুদ হোসেন।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি কাস্টমস অ্যান্ড ভ্যাট অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের সদস্য জনাব মো. রেজাউল ইসলাম বলেন, সরকারের ভিশন ২০২১ সামনে রেখে তথ্যপ্রযুক্তিকে প্রধান গুরুত্ব দিয়ে আমরা কাজ করছি। আগামীতে গার্মেন্টস  খাতকে পিছনে ফেলে তথ্যপ্রযুক্তি খাতকেই সর্বোচ্চ রফতানি খাত হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে ভ্যাট-ট্যাক্স অব্যাহতি কিংবা সেগুলোর হার কমানো হচ্ছে। এখন আমাদের কোম্পানি ও বিনিয়োগকারীদের সেসব সুযোগ কাজে লাগিয়ে দেখাতে হবে। এই খাতের সুবিধা দিতে আমরা সবসময় পাশে আছি।

বেসিস সভাপতি জনাব মোস্তাফা জব্বার বলেন, তথ্যপ্রযুক্তি খাতের উন্নয়নে আমরা বর্তমান সরকারের কাছে যেসব দাবি পেশ করেছি তা পেয়েছি। তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে জটিলতার সম্মুখীন হতে হয়। এক্ষেত্রে সরকারি সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানকে আরও আন্তরিক হতে হবে। আমাদের শুধু অবকাঠামো উন্নয়ন করলেই হবে না, প্রয়োজনীয় দক্ষ জনবল, সংশ্লিষ্ট সুবিধাসহ বিনিয়োগকারীদের জন্য ওয়ান স্টল সল্যুউশন দিতে হবে। তাহলেই দেশের সম্ভাবনাময় এই খাতে বিনিয়োগ বাড়বে। তিনি কর ও ভ্যাট মওকুফের বিরাজমান সমস্যাগুলোর সমাধান করার আহ্বান জানিয়ে মহাখালীর আইটি ভিলেজটির কাজে হাত দেবার দাবি জানান। একই সাথে তিনি তথ্যপ্রযুক্তি খাতে যারা চাকরি করে তাদেরকে আয়কর অব্যাহতি দেবারও অনুরোধ করেন।

অনুষ্ঠানের মূল প্রবন্ধ উপস্থাপক সাপোর্ট টু ডেভেলপমেন্ট অব কালিয়াকৈর হাইটেক পার্ক এর প্রকল্প পরিচালক জনাব শফিকুল ইসলাম বলেন, আমরা স্টার্টআপদের উন্নয়নে বিনামূল্যে জায়গা, বিদ্যুৎ, ইন্টারনেট, মেন্টরশীপ, প্রশিক্ষণসহ বিনিয়োগের সুবিধা দিচ্ছি। এছাড়া বিনিয়োগকারীদের জন্য সিঙ্গেল উইন্ডো ক্লিয়ারেন্স, প্রশিক্ষণ, বিশ্বমানের ব্যবসায় পরিবেশ, বিনামূল্যে কোয়ালিটি সার্টিফিকেশন প্রাপ্তিতে সহযোগিতা, সর্বোচ্চ ১২ বছর পর্যন্ত ভ্যাট-ট্যাক্স মওকুফ সুবিধা, শুল্ক ছাড়াই প্রয়োজনীয় মেশিনারিজ আনা, শতভাগ বিদেশি মালিকানার সুবিধা, প্রোকিউরমেন্ট প্রোভাইডারকে শতভাগ ভ্যাট অব্যাহতি, ১০ শতাংশ নগদ প্রণোদনা ইত্যাদি নানা সুবিধা দিচ্ছি। এখন উদ্যোক্তা ও বিনিয়োগকারীদের এগিয়ে আসতে হবে। তাদের সহযোগিতা দিতে আমরা সর্বদাই প্রস্তুত আছি।

মিলেনিয়াম ইনফরমেশন সল্যুউশন লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব মাহমুদ হোসেন বলেন, সরকার তথ্যপ্রযুক্তি খাতের উন্নয়নে নিঃসন্দেহে অনেক সুবিধা দিচ্ছে। তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে সেই সুবিধাগুলো পেতে বেগ পেতে হয়। জনতা টাওয়ারের সামনের পরিবেশ উন্নয়নে জরুরী পদক্ষেপ নেওয়া এবং বিভিন্ন টেন্ডারে দেশি কোম্পানিগুলোর অংশগ্রহণের সুযোগ তৈরি করতে সরকারকে উদ্যোগী হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।


সেমিনারে বাক্য এর সভাপতি জনাব ওয়াহিদুর রহমান, বেসিসের সাবেক মহাসচিব জনাব ফোরকান বিন কাশেমসহ অংশগ্রহণকারীরাও প্রশ্ন ও মন্তব্য করেন।

Share |

User ID
Password
Can't login?

Copyright © 2018 BASIS. All rights reserved.